Home নবীগঞ্জ বার্তা নবীগঞ্জে মামীর সাথে গোপনে প্রেম করে অবশেষে ভাগিনার ঘরের ঘরনী হলেন মনি...

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ মামীর সাথে গোপনে প্রেম করে অবশেষে ভাগিনার ঘরের ঘরনী হলেন মনি নামের এক সন্তানের জননী।
ও সোনা মামী গো, ও মামী মনের.আশা পুরাইবায়নি তুমি…? বাউল কারী আমির উদ্দিনের এই গানের অন্তরায় মুখে মুখে সুরে সুরে সমালোচিত হয়ে এই গানের
অন্তরা বাস্তবে রূপান্তরিত হয়েছে এমনি একটি ঘটনা ঘটেছে নবীগঞ্জ সদর ইউনিয়নের গুজাখাইর গ্রামে ।
মামী মনি বেগমের সাথে আকিল নামের ভাগিনার
পরকীয়া প্রেম কাহিনী নিয়ে এলাকায় তুলপার সৃষ্টি হয়ে মুখরোচক
আলোচনা সমালোচনার ঝড় বইছে। দীর্ঘদিন ধরে ঐ প্রেমিক জুটি সকলের অগোচরে প্রেম লীলায় মত্ত হয়ে একে ওপরকে পাওয়ার আশায় ব্যাকুল হয়ে উঠে। এ ঘটনাটি ঘটেছে উপজেলার ঐ গ্রামের দুটি নিম্ন মধ্যবিত্ত পরিবারের মধ্যে।
এলকাবাসি সূত্রে জানাযায়, উপজেলার গুজাখাইর গ্রামের আব্দুল বাছিদের স্ত্রী মনি বেগম (২৩) এর
সাথে আব্দুল বাছিদের আপন ভাগিনা ও একই গ্রামের মুকিম উল্যার পুত্র আকিল মিয়া (২০) এর পরকিয়া প্রেম
দীর্ঘ দিন ধরে চলে আসছিল। এই প্রেমের সূত্রধরে গত এপ্রিল মাসে ওই পরকিয়া প্রেমিক জুটি অজানার উদ্দেশ্যে পাড়ি জমালে প্রায় ৪ মাস তারা পালিয়ে থাকার পর অবশেষে গত বৃহ¯পতিবার
বিকেলে প্রেমিক আকিলের বাড়িতে এসে মনি বেগম অবস্থান
করে স্ত্রীর মর্যাদা দাবী করলে এ ঘটনায় আকিলের পরিবারের লোকজন মনি বেগমকে পুত্র বধু হিসাবে মেনে নেয়নি।
তবে মনি জানায়, আকিলের ঔরসজাত সন্তান মনির গর্ভে রয়েছে, সে বর্তমানে ৩ মাসের অন্তস্বত্ত্বা। ওই সমালোচিত ঘটনায় আকিলের বাড়িতে গ্রামের লোকজনের সমন্বয়ে ইউপি সদস্য জিল্লোননুরের সভাপতিত্বে গ্রামের বিশিষ্ট
ব্যক্তিবর্গ আব্দুল মালিক, আজমল মিয়া সহ উপস্থিত ছিলেন
আরো অনেকেই। সামাজিক বিচারে এর কোন সুরাহা না হওয়ায়
প্রেমিক আকিলের চাচা মুজাহিদ মিয়া অরফে (মুজাই) এর হেফাজতে ওই মহিলা রয়েছেন বলে জানান এলাকাবাসী। এ ঘটনায় এলাকায় নানা আলোচনা সমালোচনার ঝড় বইছে। পরকিয়া প্রেমিক আকিল মিয়া এর পূর্বে আরেকটি বিবাহ
করেছিল একই জেলার লাখাই উপজেলার মুড়াকড়ি গ্রামের দরবেশ মিয়ার কন্যা লুৎফা বেগমকে যৌতুকের মাধ্যমে। বর্তমানে লুৎফা বেগম পিত্রালয়ে থেকে আকিলের এই কু-কর্মের ঘটনা শুনে হার্টএ্যাটাক করে ঢাকার মগ বাজারে একটি প্রাইভেট
হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে। পূর্বের স্ত্রী লুৎফার অভিভাবকরা ওই লম্পটের বিরুদ্ধে মামলা দায়েরের প্রস্তুতি নিচ্ছেন বলে লুৎফার বড় ভাই জানিয়েছেন। উল্লেখ্য গুজাখাইর
গ্রামের সোলেমান মিয়ার কন্যা মনি বেগম প্রায় ৫ বছর পূর্বে একই গ্রামের রজব আলীর পুত্র আব্দুল বাছিদের সাথে প্রেম করে পালিয়ে এসে বিবাহ হয় তাদের দাম্পত্য জীবনে একটি কন্যা সন্তান রয়েছে। ঐ কন্যা সন্তান রেখে অবশেষে ভাগিনার
পিরিতে হাবুডুবু খেয়ে এখন মনি বেগম ভাগিনা আকিলে স্ত্রী দাবী করছে। অপর দিকে আখিল পলাতক রয়েছে।

Facebook Twitter Email

NO COMMENTS

Leave a Reply